অস্ত্র কেনায় শীর্ষে যেসব দেশ

Mar 13, 2018 02:47 pm
সৌদি আরব বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অস্ত্র আমদানিকারক


মধ্যপ্রাচ্যে গত পাঁচ বছরে অস্ত্র আমদানি দ্বিগুণেরও বেশি বেড়েছে বলে জানিয়েছে সুইডেনভিত্তিক সংস্থা ‘স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইন্সটিটিউট' বা সিপ্রি৷ সৌদি আরবে অস্ত্র আমদানি ২২৫ শতাংশ বেড়েছে বলে জানায় সংস্থাটি৷

সিপ্রির প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি আরব ২০১৩-২০১৭ মেয়াদে ২০০৮-২০১২ সময়কালের তুলনায় ২২৫ শতাংশ বেশি অস্ত্র কিনেছে৷ গত কয়েক বছর ধরে ইয়েমেনে ইরান-সমর্থিত হুথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে দেশটি৷

সিপ্রির গবেষণা বলছে, সৌদি আরব বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অস্ত্র আমদানিকারক৷ গত সপ্তাহে দেশটি ব্রিটেন থেকে ৪৮টি অত্যাধুনিক ফাইটার জেট কেনার চুক্তি করেছে৷ মানবাধিকার কর্মীদের অভিযোগ, পশ্চিমা বিশ্বের কাছে থেকে কেনা অস্ত্র দিয়ে সৌদি আরব ইয়েমেনে নিরীহ মানুষ হত্যা করছে৷ এদিকে, চলতি বছরের শুরুতে জার্মান সরকার জানিয়েছে, তারা ইয়েমেন যুদ্ধে লিপ্ত কারও কাছে অস্ত্র বিক্রির অনুমোদন দেবে না৷ উল্লেখ্য, জার্মানি বিশ্বের চতুর্থ অস্ত্র বিক্রেতা৷ গত পাঁচ বছরে জার্মানির অস্ত্র বিক্রি আগের পাঁচ বছরের তুলনায় ১৪ শতাংশ কমলেও মধ্যপ্রাচ্যে অস্ত্র বিক্রি বেড়েছে ১০৯ শতাংশ৷

অন্যদিকে, অস্ত্রবিক্রেতা হিসেবে এখনও শীর্ষে আছে যুক্তরাষ্ট্র৷ গত পাঁচ বছরে তাদের অস্ত্র বিক্রি বেড়েছে প্রায় ২৫ শতাংশ৷ এই পাঁচ বছরে সারা বিশ্বে বিক্রি হওয়া মোট অস্ত্রের এক-তৃতীয়াংশই করেছে যুক্তরাষ্ট্র৷ এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের মোট অস্ত্র বিক্রির অর্ধেকই গেছে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে৷ সিপ্রির কর্মকর্তা অডে ফ্লরান্ট বলছেন, ‘‘ওবামা প্রশাসনের সময় স্বাক্ষরিত হওয়া চুক্তির আওতায় ২০১৩-১৭ মেয়াদে যে পরিমাণ অস্ত্র বিক্রি করা হয়েছে তা নব্বই দশকের শেষে যত অস্ত্র বিক্রি করা হয়েছিল, তার তুলনায় বেশি৷

‘‘এ সব চুক্তি এবং ২০১৭ সালে আরও যত চুক্তি সই হয়েছে তাতে ধরে নেয়া যায়, আগামী কয়েক বছরেও যুক্তরাষ্ট্র অস্ত্র বিক্রির তালিকায় শীর্ষে থাকবে,'' বলেন সিপ্রির ঐ কর্মকর্তা৷

ভারত শীর্ষে

বিশ্বের সবচেয়ে বড় অস্ত্র আমদানিকারক হচ্ছে ভারত৷ বিশ্বে যত অস্ত্র বিক্রি হয় তার ১২ শতাংশের ক্রেতা দেশটি৷ ভারত সবচেয়ে বেশি অস্ত্র কেনে রাশিয়া থেকে, প্রায় ৬২ শতাংশ৷ যুক্তরাষ্ট্র থেকেও ভারতের অস্ত্র আমদানি প্রায় ছয়গুণ বেড়েছে৷ ‘‘পাকিস্তান ও চীনের সঙ্গে উত্তেজনার কারণে ভারতে (যারা এখন অস্ত্র তৈরি করতে সমর্থ হয়নি) অস্ত্রের চাহিদা বাড়ছে,'' বলেন সিপ্রির গবেষক সিমোন ভেজেমান৷ ‘‘অন্যদিকে চীন নিজেদের অস্ত্র তৈরির সামর্থ্য বাড়িয়ে যাচ্ছে এবং এর মাধ্যমে পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের সঙ্গে সম্পর্ক মজবুত করছে,'' বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি৷বরাবরের মতো এখনো রাশিয়ার কাছ থেকেই সবচেয়ে বেশি অস্ত্র ক্রয় করে ভারত৷ সিপ্রি-র প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১০ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে সবচেয়ে বড় অস্ত্র আমদানিকারক দেশও ভারত৷ ২০১৫ সালেও এই খাতে ৩ হাজার ৭৮ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছে তারা৷ ২০১৪ সালে ৩ হাজার ৪৮৭ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করে এক বছরের শীর্ষ অস্ত্র আমদানিকারক দেশের তালিকায় সবার ওপরে ছিল ভারত৷ এবার শীর্ষে উঠে এসেছে সৌদি আরব৷

অবাক করেছে অস্ট্রেলিয়া
আগের বছরের শীর্ষ অস্ত্র আমদানিকারকদের তালিকায় অষ্টম স্থানে ছিল অস্ট্রেলিয়া৷ কিন্তু ২০১৫ সালে ১ হাজার ৫৭৪ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করে তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে তারা৷

চতুর্থ মিশর
মিশরও দীর্ঘদিন ধরে অশান্ত৷ সে দেশে উল্লেখযোগ্য হারে অস্ত্র ক্রয়ও বাড়ছে৷ ২০১৫ সালে অস্ত্র ক্রয়ে ১ হাজার ৪৭৫ মিলিয়ন ডলার খরচ করে সে বছরের সর্বোচ্চ অস্ত্র আমদানিকারক দেশগুলোর তালিকায় চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে মিশর৷ এক বছর আগে ২২তম স্থানে তারা!

পঞ্চম স্থানে সংযুক্ত আরব আমিরাত!
সৌদি আরব, ভারত, অস্ট্রেলিয়া আর ফ্রান্সের পরই আছে সংযুক্ত আরব আমিরাত৷ ২০১৫ সালে অস্ত্র ক্রয়ে তাদের মোট ব্যয় ১ হাজার ২৮৯ মিলিয়ন ডলার৷ ব্যয় বাড়িয়ে এক বছরে ১১ তম স্থান থেকে এক লাফে পঞ্চম স্থানে উঠে এসেছে তারা৷

ইরাকও আছে অস্ত্র ক্রয়ের প্রতিযোগিতায়
ইরাকের মানুষ রক্তপাতহীন একটি দিন কবে পাবে কে জানে! এখন যে যুদ্ধ চলছে সেখানে ইরাকি সেনাবাহিনীর প্রতিপক্ষ সুন্নি মুসলমানদের তথাকথিত জঙ্গি সংগঠন আইএস৷ ফলে অস্ত্র ক্রয় আরো বেড়েছে৷ ২০১৫ সালেই এই খাতে মোট ১ হাজার ২১৫ মিলিয়ন ডলার খরচ করেছে ইরাক৷ ফলে ২০১৪ সালের শীর্ষ আমদানিকারক দেশগুলোর তালিকায় ১৫তম স্থান পাওয়া ইরাক ২০১৫ সালে ৯ ধাপ এগিয়ে উঠে এসেছে ষষ্ঠ স্থানে৷

চীন পিছিয়েছে
২০১৪ সালে সবচেয়ে বেশি অস্ত্র আমদানি করা দেশগুলোর তালিকার চতুর্থ স্থানে ছিল চীন৷ পরের বছর ১ হাজার ২১৪ মিলিয়ন ব্যয় করেও সপ্তম স্থানে নেমে গেছে তারা৷ এটা অবশ্য শুধু এক বছরে অস্ত্র আমদানিতে মোট ব্যয়ের হিসেব৷ চীন শুধু অস্ত্র আমদানি করে না, বিক্রিও করে৷ শীর্ষ অস্ত্র রপ্তানিকারক দেশের তালিকায় যুক্তরাষ্ট্র আর রাশিয়ার পরই তাদের স্থান৷

ভিয়েতনামও আছে
২০১৪ সালে এক বছরে অস্ত্রখাতে সবচেয়ে বেশি ব্যয় করা দেশগুলোর তালিকায় সপ্তম স্থানে ছিল ভিয়েতনাম৷ উন্নয়নশীল এই দেশটি ২০১৫ সালে ৮৭০ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করেও এক ধাপ পিছিয়েছে৷

অস্ত্র ক্রয়ে সমস্যা নেই গ্রিসের!
চরম অর্থনৈতিক সংকট চলছে গ্রিসে৷ অন্যদিকে অস্ত্র ক্রয়ে ব্যয় বাড়ানোর প্রবণতাও ভয়ংকর রূপ নিয়েছে৷ ২০১৫ সালে অস্ত্র ক্রয়ে ৭৬২ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছে গ্রিস৷ ফলে এক বছরে অস্ত্র খাতে সবচেয়ে বেশি ব্যয় করা দেশগুলোর তালিকায় নবম স্থানে উঠে এসেছে তারা৷ আগের বছর ৩৩তম স্থানে ছিল গ্রিস৷

এক ধাপ পিছিয়েছে পাকিস্তান
২০১৫ সালে অস্ত্র ক্রয়ে মোট ৭৩৫ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছে পাকিস্তান৷ বৈরি প্রতিবেশী দেশ ভারতের চেয়ে দু’হাজার মিলিয়নের চেয়েও কম ব্যয় করে তারা এখন তালিকার দশম স্থানে৷ ২০১৪ সালে নবম স্থানে ছিল পাকিস্তান৷

ডয়েচে ভেলে